ধোনির সাফল্যগাঁথা জীবন প্রমাণ করে ব্যর্থতাই সফলতার মূলমন্ত্র

 

জীবনের কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে, সাফল্যগাঁথা মাইলফলক স্পর্শ করে এঁকেছেন সফলতার বহু গল্প,  তাদেরই একজন মহেন্দ্র সিং ধোনি। ছোটবেলা থেকে খেলাধুলার প্রতি এতোটাই আসক্ত ছিলেন যে, স্কুলের যেকোনো প্রতিযোগিতায় তিনি অংশ নিতেন।  প্রথমদিকে ফুটবলের প্রতি টান থাকলেও, পরবর্তীতে ক্রিকেটকেই তাঁর ক্যারিয়ার লক্ষ্য হিসেবে বেঁছে নেন।

 

ক্যারিয়ারের শুরুতে ধোনি ঠিক মতো বেতন পেতেন না । বন্ধুর কাছ থেকে টাকা ধার করে যেতেন অনুশীলনে।  পরিবারের অস্বচ্ছলতা এবং আর্থিক পিছুটানও ক্রিকেটাবেগী এই তরুণকে দমিয়ে রাখতে পারে নি। চাইলেই তিনি হাল ছেঁড়ে দিতে পারতেন, কিন্তু সেটা না করে তিনি জীবনের মহা সংকটময় ধাপটি পার করেছেন ট্রেনের ‘টিকেট কালেক্টর’ হিসেবে কাজ করে।

আর্থিক চিন্তা, পারিবারিক সংকীর্ণ অবস্থা ধোনিকে তাঁর লক্ষ্য থেকে বিচ্যুত করতে পারে নি। কালেক্টর হিসেবে কর্মরত অবস্থায়ও  ক্রিকেট প্র্যাকটিস চালিয়ে যান। ১৯ বছর বয়সে ‘ রনজু’ ট্রফি, তার ঠিক ৫-৬ বছর পর ভারতীয় জাতীয় দলে জায়গা করে নেন রাঁচির এই তরুণ অভিযাত্রিক। জীবনের প্রথম বিশ্বকাপ একাদশে জায়গা করে নিলেও, প্রথম পর্বেই ছিটকে পরে তাঁর দল। ভাংচুর চালানো হয় তাঁর বাসায়, অনেকটা হতাশ হয়ে পরেন নিজের পারফরম্যান্সের উপর।

 

তবুও যেন মাথা নোয়াবার নয়, ব্যর্থতা তাঁকে গ্রাস করতে পারে নি। তিনি পুনরায় ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেন। সফলতার যাত্রাটা বুঝি শুরু হলো তখন থেকেই। ২০০৮-২০০৯ সালের ‘প্লেয়ার অব দ্য ইয়ার’ সম্মাননা লাভ করেন তিনি। এরপর তাঁর হাত ধরেই টি-২০ ট্রফি, বিশ্বকাপ জয় এবং চ্যাম্পিয়নস ট্রফির স্বাদ পায় ভারত। নাম হয়ে যায় ‘ক্যাপ্টেন কুল’ । বর্তমানে তাঁর সম্পদের পরিমাণ $১১০ মিলিয়ন।

 

 

প্রত্যেকের জীবনে একটি সংকটময় মূহূর্ত থাকে, সফল হয়ে কেউ জন্মায় না। মানুষকে নিজের প্রয়োজনে জীবনের সাথে লড়াই করে টিকে থাকতে হয়। আপনার জীবন যদি ধোনির মতই এমন সংকটাপন্ন হয়ে থাকে, তাহলে আপনাকে অভিনন্দন। আপনি জীবনে সফল হওয়ার প্রথম স্টেজ পার করেছেন। বাকি স্টেজ গুলোও পার করতে পারবেন, যদি আপনি এখন থেকেই সঠিক ক্যারিয়ার পরিকল্পনা করে থাকেন

 

আপনি হয়তো নিজেও জানেন না আপনি ক্যারিয়ারে কি হতে চান। আর যদি জেনেও থাকেন তাহলে কিভাবে সেই ক্যারিয়ার পথ অতিক্রম করবেন, কিভাবে যাত্রা শুরু করবেন তা জানেন না। এই দ্বিধা থেকে মুক্তি পেতে দরকার সঠিক পরিকল্পনা এবং ক্যারিয়ার উদ্যোগ।

 

আপনি যে সময়টা ফেসবুক ব্যবহার করে নষ্ট করছেন, বন্ধুদের সাথে অসময়ে আড্ডা দিচ্ছেন, সে সময়ে অন্য কেউ নতুন কোনো বিষয়ে স্কিল ডেভেলপ করে, নতুন কিছু শিখে এগিয়ে যাচ্ছে দুরন্ত গতিতে। তাই ভালো হবে, যদি সময়কে নিজের উপযোগী করে কাজে লাগিয়ে, নতুন কোনো স্কিল অর্জন করতে পারেন। একজন ধোনি হয়তো হতে পারবেন না, তবে সফলতার দ্বারপ্রান্তে ঠিক পৌঁছতে পারবেন।

 

গল্পের সারমর্মঃ

সফলতার পেছনে রয়েছে হাজারো ব্যর্থতার গল্প ।

 

ক্যারিয়ার দিক-নির্দেশনা এবং জব রিলেটেড তথ্য পেতে এই লিংকে প্রবেশ করুনঃ 

https://www.facebook.com/groups/REPTOedu/

 

লিখেছেনঃ মুশফিকুর রহমান