জেনে নিন আকর্ষণীয় সিভি তৈরির ৭টি মূলমন্ত্র

একটি আকর্ষণীয় ও পারফেক্ট সিভি আপনাকে অন্য দশজন প্রার্থীর তুলনায় আলাদা করে উপস্থাপন করবে এবং আত্মবিশ্বাস অনেকটাই বাড়িয়ে দেবে। আপনি নিজে সেখানে পৌঁছতে পারবেন না, যেখানে আপনার সিভি পৌঁছতে পারবে। সিভির তাৎপর্যটা নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন ।

 

যেহেতু সিভি হচ্ছে চাকরি পাওয়ার প্রথম ইম্প্রেশন, তাই আমাদের সিভি তৈরির ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে। আসুন জেনে নেই, কোন সাতটি বিষয়ে আমাদের সচেতন থাকতে হবে।

 

আকর্ষণীয় সিভি তৈরির ৭টি মূলমন্ত্র

 

ফরমেট

 

সিভি কত পৃষ্ঠার হবে, মার্জিন কিংবা পেইজের দৈর্ঘ্য কেমন হবে , ফন্ট ফ্যামিলি কেমন হবে, কোন ফরমেটে তৈরি করতে হবে এসব নিয়ে আমরা মোটেও চিন্তা করি না। কেননা, সাধারণ একটি সিভি বানিয়ে জব এপ্লাই করাতে আমরা অভ্যস্ত। কাজেই ফরমেটের দিকে গুরুত্ব দিতে হবে, সিম্পল ও স্ট্যান্ডার্ড টেমপ্লেট ব্যবহার করতে হবে।

 

কম্পিউটার স্কিল

 

আপনি কর্পোরেট লাইফ লিড করতে যাচ্ছেন, সেখানে যদি আপনার কম্পিউটার স্কিলই না থাকে, তাহলে আপনি কেন আশা করেন যে আপনার চাকরি হবে ? সিভিতে স্পষ্ট করে আপনার কম্পিউটার স্কিল্গুলো হাইলাইট করে দিন।

 

ক্যারিয়ার অবজেক্টিভ

 

সিভির শুরুতেই থাকবে ক্যারিয়ার অবজেক্টিভ । অর্থাৎ, আপনি কেন এপ্লাই করছেন, আপনি কতটুকু দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে ইচ্ছুক, আপনি ঐ কোম্পানিতে কোন পদের জন্য এপ্লাই করছেন, আপনার কি কি দক্ষতা এবং ট্রেইনিং রয়েছে এসব নিয়েই মূলত অবজেক্টিভ সাজাতে হয়।

সিভিতে আরো একটা বিষয় খেয়াল রাখতে হবে, সেটা হলো আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা উল্লেখ করেছেন কিনা। যদি না করে থাকেন তাহলে অবশ্যই শিক্ষাগত যোগ্যতা অ্যাড করে নিন।

 

ফেলোশিপ অথবা ইন্টার্নশিপ

 

আপনি যদি কোনো ইন্টার্নশিপ করে থাকেন, অথবা কোনো সংগঠন বা সমিতির ফেলোশিপের কাজ করে থাকেন তাহলে সেগুলো অবশ্যই উল্লেখ করবেন। কারণ, এই ইন্টার্নশিপে যেই দক্ষতা অর্জন করেছেন তা পরবর্তী ক্যারিয়ার গন্তব্যে পৌঁছতে আপনাকে অনেক সহযোগিতা করবে ।

 

পোর্টফোলিও

 

আপনি যদি ফ্রেশার হয়ে থাকেন, তবে আপনার ভার্সিটিতে বিভিন্ন অ্যাক্টিভিটিস গুলো ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করুন। যেমন ধরুনঃ আপনি ভার্সিটির কম্পিউটার/ স্কিল ডেভেলপমেন্ট ফোরামে কাজ করেছেন দীর্ঘদিন কিংবা কোনো সোস্যাল সার্ভিসিং ক্লাবে ইনভলভড ছিলেন। সেখানে আপনি যদি কোনো প্রজেক্ট করে থাকেন তা উল্লেখ করুন।

 

অথবা আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতেন, ক্লায়েন্টের করে দেওয়া কাজগুলো পোর্টফোলিও হিসেবে অ্যাড করুন।

কপি-পেস্ট এড়িয়ে চলা

 

অলসতার কারণে কখনোই অন্যের সিভি কপি করবেন না। এই ভুলটা আমরা অধিকাংশ মানুষই করে থাকি। জব ডেস্ক্রিপশন দেখে নতুন করে সিভি তৈরি করুন। এই প্রবাদটি নিশ্চয়ই শুনেছি যে, সস্তার তিন অবস্থা।

 

সিম্পল ফরমেট

 

যতটুক সম্ভব আপনার সিভিকে আকর্ষণীয় করার চেষ্টা করুন, তবে সিম্পলভাবে নিজেকে উপস্থাপন আপনার সিভিকে এক অনন্য মাত্রায় নিয়ে যাবে।

 

 

লিখেছেনঃ মুশফিকুর রহমান